সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বৃষ্টির লুকোচুরি দিন শেষে ইনিংস হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ দেশকে সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যেতে তৈরি হও : নতুন প্রজন্মের প্রতি প্রধানমন্ত্রী এবার রাশিয়ার সোনা আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত মুন্সিগঞ্জে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম,ককটেল বিস্ফোরণ-দোকানপাট ভাঙচুর না.গঞ্জে কোরবানি পশুর সংকট ৪৫ হাজারের বেশি কেয়ার টেকারে বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ, স্ত্রী আটক জুয়া খেলায় বাধা, স্বামী-স্ত্রীসহ ৩জনকে কুপিয়ে জখম প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা না.গঞ্জে থেকে গ্রেপ্তার র‌্যাবের অভিযানে ২জন আটক, সাড়ে ১৩হাজার ইয়াবা উদ্ধার চাষাঢ়া তর্ক বিতর্ক ফতুল্লায় গিয়ে খুন, গ্রেপ্তার ২

রূপগঞ্জ ট্র্যাজেডি: আদালতে আগুনের ঘটনার বিস্তারিত জানাল ৪ শ্রমিক

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১, ৪.২৩ এএম
  • ৮৮ বার পড়া হয়েছে

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সজীব গ্রæপের হাসেম ফুডস লিমিটেড কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় বিস্তারিত জানিয়ে ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী চার শ্রমিক। ঘটনার দিন তারা কারখানায় কর্মরত ছিলেন। গত বুধবার (২৬ আগস্ট) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাওসার আলমের আদালতে জবানবন্দি দেন তারা।
বিষয়টি নিশ্চিত করে আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান জানান, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা হত্যা মামলাটি তদন্ত করছে অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। বুধবার বিকেলে সিআইডি প্রত্যক্ষদর্শী চার শ্রমিককে আদালতে হাজির করে। পরে তারা ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দেন।
উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায় অবস্থিত কারখানাটির ছয়তলা ভবনে ভয়াবহ আগুনে ৫১ জন মারা যান। এই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে কারখানার মালিক এম এ হাসেম, তার চার ছেলে ও তিন কর্মকর্তাকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক আতাউর রহমান জানান, ঘটনার দিন বিকেল ৫টার কিছুক্ষণ পরপরই কারখানার নিচতলার পূর্বদিক থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। শুরুতে আগুন দেখতে পায় কারখানায় কর্মরত ১৭ বছর বয়সী শ্রমিক শাকিব হোসেন গিয়াস। তখন সে চিৎকার করে ডাকে আরেক শ্রমিক নূর আলমকে। তারা আদালতে ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। মো. হীরা ও মো. আবদুল্লাহ নামে আরও দুই শ্রমিক ওই দিনের বিভিন্ন বিষয়ে আদালতকে জানিয়েছেন।
তিনি আরও জানান, নিহত ৪৫ শ্রমিকের মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেয়ার তথ্য আদালতে জমা দেয়া হয়েছে। বাকি মরদেহগুলোর পরিচয় শনাক্ত করার পর তাদের তথ্য আদালতে পাঠানো হবে। আগুন নেভাতে দীর্ঘ সময় লাগার কারণ মনে করা হচ্ছে, কারখানার প্রতি ফ্লোরে মজুদ করা দাহ্য পদার্থ। ছিল বিপুল পরিমাণ রাসায়নিক, যা আগুন আরও ছড়িয়ে যেতে অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com