সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
বৃষ্টির লুকোচুরি দিন শেষে ইনিংস হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ দেশকে সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যেতে তৈরি হও : নতুন প্রজন্মের প্রতি প্রধানমন্ত্রী এবার রাশিয়ার সোনা আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত মুন্সিগঞ্জে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম,ককটেল বিস্ফোরণ-দোকানপাট ভাঙচুর না.গঞ্জে কোরবানি পশুর সংকট ৪৫ হাজারের বেশি কেয়ার টেকারে বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ, স্ত্রী আটক জুয়া খেলায় বাধা, স্বামী-স্ত্রীসহ ৩জনকে কুপিয়ে জখম প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা না.গঞ্জে থেকে গ্রেপ্তার র‌্যাবের অভিযানে ২জন আটক, সাড়ে ১৩হাজার ইয়াবা উদ্ধার চাষাঢ়া তর্ক বিতর্ক ফতুল্লায় গিয়ে খুন, গ্রেপ্তার ২

নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠায় মেয়র আইভী

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪.১০ এএম
  • ১৪১ বার পড়া হয়েছে

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: দেশের প্রথম নারী মেয়রের স্বীকৃতি রয়েছে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর। তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র। ২০০৩ সালে কানাডা থেকে ফিরে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার প্রথম নারী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সেই সময় থেকেই নারী উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছেন ডা. আইভী। পৌরসভা থেকে সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত হওয়ার পর সেই কাজের পালে হাওয়া লেগেছে আরও কয়েকগুন। সিটি কর্পোরেশনের প্রতি বছরের বাজেটে নারীর ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন খাতে বরাদ্দ রাখেন মেয়র আইভী। তাঁর হাত ধরে অনেক নারী কর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়েছেন। নি¤œ আয়ের অনেক নারীর সামনে অর্থনৈতিক মুক্তির দ্বার উন্মোচন করেছেন সিটি মেয়র ডা. আইভী।
নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন থেকে পাওয়া তথ্যমতে, নারীর ক্ষমতায়নে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এলাকার বিভিন্ন বস্তি ও নি¤œ আয়ের নাগরিকদের সমন্বয়ে ১ হাজার ৬৩৬টি প্রাথমিক দল গঠন করেছেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। প্রতিটি দলে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য সকলের সম্মতিক্রমে নেতাও নির্বাচন করা হয়েছে। মেয়র আইভী নিজ তত্ত¡াবধানে টাউন ফেডারেশন, সিএইচডিএফসহ ১০টি ক্লাস্টারের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নারীদের দক্ষতা ও মানবিক উন্নয়নে প্রশিক্ষণও দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন।
নাসিক সূত্রমতে, নারীর দক্ষতা ও মানিবক উন্নয়নের লক্ষ্যে গত ২০২০-২১ অর্থবছরে ১ হাজার ৬৫৫ জন নারীকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। এই খাতে ব্যয় হয়েছে ১১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। চলতি অর্থবছরে সাড়ে ১১ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এতে আরও ১ হাজার ৭০০ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদানের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করেছে নাসিক। নারীদের সাবলম্বী করে তুলতে আরও পদক্ষেপ নিয়েছেন মেয়র আইভী। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের জন্য ৪৫০ জনকে ৪৫ লাখ টাকা পুঁজি সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে ১৫০ জনকে সাড়ে ১৬ লাখ টাকা প্রদান করা হবে। নারী প্রধান পরিবারে অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে নাসিকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ। একই সাথে ১৮০ জন হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ক্ষুদ্র ব্যবসা পরিচালনার জন্য ১২ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।
এছাড়া ১৯২ জনকে ৩০ লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে সেলাই মেশিন চালানোর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। হতদরিদ্র পরিবারের সন্তানরা যাতে শিক্ষায় পিছিয়ে না পড়ে সেদিকেও নজর দিয়েছেন মেয়র আইভী। তিনি সিটি কর্পোরেশনের মাধ্যমে ৯৩ জন দরিদ্র শিক্ষার্থীকে ৮ লাখ ৬০ হাজার টাকা শিক্ষা সহায়তা প্রদান করেছেন। ঝরে পড়া আরও ৯৩ শিশুকে শিক্ষা কার্যক্রমের মূলধারায় ফিরিয়ে আনতে বিনামূল্যে বই, খাতা, পেন্সিল, কলম, ব্যাগ, পোশাক, জুতা, মোজা ও অন্যান্য আনুসাঙ্গিক শিক্ষা উপকরণ দিয়েছেন মেয়র আইভী।
নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা রোধেও নানা কার্যক্রম পরিচালনা করেছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। নারী ও শিশুর প্রতি সহিসংতা প্রতিরোধে দশটি ‘সেফ কমিউনিটি কমিটি’ গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির সদস্যদের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। একই সাথে ৪৫০ কিশোরীর মাঝে পুষ্টি ও স্বাস্থ্য সচেতন ও সুরক্ষা বিষয়ক স্বাস্থ্য শিক্ষা ও উপকরণ সরবরাহ করা হয়েছে। এতে ব্যয় হয়েছে ১১ লাখ টাকা। গর্ভবতী নারী ও শিশুর পুষ্টি খাদ্য সহায়তা বাবদ ১ হাজার ৪৯২ জনকে ১ কোটি ২১ লাখ টাকা ব্যয় করা হয়েছে। নারী ও শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রতি খেয়াল রেখে সিটি কর্পোরেশনের ৪টি নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র পরিচালিত হচ্ছে। এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্রে সুলভ মূল্যে গর্ভবতী মা, কিশোরী প্রজনন শিক্ষাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়।
এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, পৌরসভা থেকে শুরু করে সিটি কর্পোরেশন পর্যন্ত দীর্ঘ এই সময়ে আমি সততার সাথে কাজ করেছি। নারী-পুরুষ, দল-মত-ধর্মের উর্ধ্বে উঠে কাজ করেছি। কাজের মধ্যে কোনো ভেদাভেদ করিনি। নারীর উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে আমরা ব্যাপক কাজ করেছি। কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য-প্রজনন প্রশিক্ষণ আমরা প্রতিনিয়ত দিয়ে যাচ্ছি। সিটি কর্পোরেশনের অর্থায়নে নির্মিত প্রতিটি ভবন ও প্রতিষ্ঠানে নারীবান্ধব টয়লেট রেখেছি। এছাড়া ভূমি নামে একটি সংগঠনের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। তারা শহরের সড়কের পাশে নারীবান্ধব টয়লেট স্থাপন করে সেটি নারীদের মাধ্যমেই পরিচালনা করবে। এতে করে নারীদের পাবলিক টয়লেটে যাওয়ার ক্ষেত্রে যে অস্বস্তি হয় তা আর থাকবে না।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com