রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

দুই মহাসড়কে তীব্র যানজট, ১০ মিনিটের পথে ৫ ঘন্টা

  • আপডেট সময় বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১, ৪.৪১ এএম
  • ৩২ বার পড়া হয়েছে

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: বাদামতলী থেকে ফলবোঝাই পিকআপ নিয়ে ফেনী যাচ্ছেন হাসান। সকাল ১০টায় যাত্রাবাড়ি থেকে যানজটের কবলে পড়েন। সাইনবোর্ড পার হওয়ার পর যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। বেলা যখন ৩টা বাজে তখন হাসান ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের শিমরাইল মোড়ে। হাসান বলেন, ‘১০ মিনিটের পথ পার হইছি ৫ ঘন্টায়। বাকি পথ কখন যেতে পারবো জানি না।’
মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত সরেজমিনে তীব্র যানজট দেখা যায়। যানজট রয়েছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও। দুই মহাসড়কের প্রায় ২৫ কিলোমিটার পর্যন্ত যানজটের পরিধি। গত সোমবার রাত থেকেই যানজটের শুরু হয়েছে। ভোগান্তি পোহাচ্ছেন।
যানজটের কারণ হিসেবে হাইওয়ে ও ট্রাফিক পুলিশ বলছে, সোমবার সকাল ৮টা থেকে ঢাকা–চট্টগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ সেতুর ক্ষতিগ্রস্ত ডেক ¯ø্যাব মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। এই কাজ চলবে বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত। এই কারণে গত রাত থেকেই দুই মহাসড়কে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে।
শিমরাইল মোড়ে চেকপোস্টে দায়িত্বরত নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের কনস্টেবল শাহরুখ বলেন, সকাল সাতটায় ডিউটিতে আসার পর থেকেই তিনি যানজট দেখতে পান। এই যানজট রয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের প্রায় ২৫ কিলোমিটার পর্যন্ত।
সোমবার রাত থেকে যানজট জানালেন সারুলিয়ার বাসিন্দা সৌদি প্রবাসী মো. ফারুক। ভিসার কাজে গতকাল গিয়েছিলেন কুমিল্লা। রাত ১টার দিকে একটি হাইয়েস ভাড়া করে চান্দিনা থেকে শিমরাইল আসতে তার ৪ ঘন্টা লেগেছে। স্বাভাবিক সময়ে সর্বোচ্চ পৌনে এক ঘন্টা সময় লাগতো বলে জানান ফারুক।
এর আগে এক বিজ্ঞপ্তিতে লাঙ্গলবন্দ সেতুর মেরামতের কথা জানিয়েছিল সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ)। বিজ্ঞপ্তিতে মেরামত চলাকালীন হালকা যানবাহনকে মোগড়াপাড়া-কাইকারটেক ব্রিজ-নবীগঞ্জ-মদনপুর রুট ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ করা হয়। অন্যদিকে ভারী যানবাহনের জন্য কাঁচপুর-ভুলতা-নরসিংদী-ভৈরব ব্রিজ-সরাইল-ব্রাহ্মণবাড়িয়া-কুমিল্লা রুট ব্যবহার করতে বলে সওজ। আগামী ১৪ জুলাই দুপুর ১২টা থেকে লাঙ্গলবন্দ সেতুর ওপর দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।
এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ সেতু দিয়ে যান চলাচল করতে না পারায় পণ্যবাহী যান, অ্যাম্বুলেন্স, পেশাগত ও জরুরি প্রয়োজনে বের হওয়া মানুষজন পড়েছেন ভোগান্তিতে। দীর্ঘ যানজট ও তীব্র রোদে নাকাল হতে হচ্ছে তাদের। যানজটে পড়তে দেখা যায় কোরবানির পশুবাহী বেশ কয়েকটি ছোট-বড় ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানকে।
কাঁচপুর সেতুর উত্তর পাশের ঢালে পশুবাহী ট্রাক নিয়ে যানজটে আটকা পড়েছেন বেপারী মানিক। দিনাজপুর থেকে গরুবোঝাই করে নিয়ে যাচ্ছেন নোয়াখালী। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ছয় ঘন্টা যাবৎ আছেন যানজটে। তীব্র রোদের তাপে ট্রাকে থাকা গরু আবার হিট স্ট্রোক করে কিনা তা নিয়ে শঙ্কিত মানিক বলেন, ‘গরুগুলা ন্যাতায়ে পড়তেছে। বইসা পড়তে চায়। ছয় ঘন্টা জ্যামের ভেতর। শুনতাছি সামনে আরও জ্যাম। কখন পৌঁছামু আল্লাহ জানেন।’

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com