শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪৪ অপরাহ্ন

চাঁদাবাজির অভিযোগের সুস্থ্য তদন্ত চান সিদ্ধিরগঞ্জের রাজু

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১, ৩.৪৬ এএম
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জ থানা সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক আমিনুল হক রাজুর বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় চাঁদাবাজির অভিযোগ সুস্থ্য তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন আমিনুল হক রাজু। আমিনুল হক রাজু গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, নাসিক ২ নং ওয়ার্ডে কিশোর গ্যাংয়ের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। টেনশন গ্রæপ নামে একটি কিশোর গ্যাং এলাকায় অবৈধ অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিচ্ছে। ইতিমধ্যে এলাকায় আল-আমিন নামে এক যুবককে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগও দিয়েছেন। পাশাপাশি ২ নং ওয়ার্ডের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের এলাকা থেকে পতিহত করার করণে এই চক্রগুলো আমাকে ঘায়েল করতে গণমাধ্যমকর্মীদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার নষ্ট করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ষড়যন্ত্রকারীরা।
২ নং ওয়ার্ডের টেনশন গ্রæপের নামে গত কিছুদিন আগে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে। এই মামলার প্রধান সাক্ষী আল-আমিন। আল-আমিন ও আমিনুল হক রাজু এবং তার সহকর্মীদের সানোয়ার কাদেরী নামের এক ব্যক্তি গত বুধবার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি চাঁদাবাজির অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সানোয়ার কাদেরী হাজেরা মার্কেট এলাকায় ১০ কাঠা জমি কিনতে চাইলে আমিনুল হক রাজু গং চাঁদা দাবী করেন এবং দাবীকৃত টাকা না দিলে জমি কিনতে দেওয়া হবেনা ও বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। উক্ত বিষয়ে সানোয়ার কাদেরী থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। যা তদন্ত করছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই রিপন। সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আমিনুল হক রাজু আরও বলেন, সানোয়ার কাদেরী নামে যে ব্যক্তি আমাদের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় অভিযোগ করেছেন তাকে আমি কখনো দেখিনি। উনি কেনো আমার এবং আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন তাও জানিনা। আমাকে ঘায়েল করতে এবং একটি মামলা প্রধান সাক্ষী আল-আমিন যাতে সাক্ষী না দিতে পারে সে জন্য তারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র ও মিথ্যা অভিযোগ উঠাচ্ছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পদক হাজী ইয়াছিন মিয়া বলেন, আমিনুল হক রাজু আওয়ামীলীগের একজন সক্রিয় কর্মী। রাজুর চাঁদা দাবীর করতেই পারেনা। অভিযোগকারীর মোবাইল নাম্বারে ফোন করলে একজন মহিলা রিসিভ করে। সানোয়ার কাদেরীকে চাইলে এড়িয়ে গিয়ে ফোন কেটে দেয়।
রাজু দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সাথে রাজনীতি করে যাচ্ছে। এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ও কিশোর গ্যাংয়ের একটি চক্র রাজু বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বলে আমার ধারনা। হাজী ইয়াছিন মিয়া আরও বলেন, সামনে আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন। আমিনুল হক রাজু নির্বাচনের প্রার্থী হবে বলে আমি জানি। তাই এলাকাবাসী কাছে সুনাম ক্ষুন্ন করতে অপপ্রচার করছে। এ অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।
নারায়ণগঞ্জের সুযোগ্য পুলিশ সুপারের মাধ্যমে উক্ত অভিযোগের সুস্থ্য তদন্ত করার জন্য আকুল আবেদন জানান আমিনুল হক রাজু।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com