বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

আমরা উপরে নিচে কাউকে চিনতে চাই না : পুলিশ সুপার

  • আপডেট সময় সোমবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২২, ৫.২৭ এএম
  • ১৭৯ বার পড়া হয়েছে

জেলা পুলিশ সুপার মো: জায়েদুল আলম বলেছেন, আমি বিগত দুই বছর যাবত আপনাদের জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত আছি। এই দুই বছরে আপনারা একটি উদাহরন দিতে পারবেন না যেখানে আমাদের কোন কর্মকান্ডে কোন পক্ষপাত মুলক ছিলো। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনটি ধাপে নির্বাচন হয়েছে। আপনারা অনেকে শঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন, অনেকেই বলেছিলেন এই নির্বাচনে অনেক সংহিসতার ঘটনা ঘটবে। আপনাদের সকলের সহযোগীতায় নির্বাচন সুষ্ঠ, সুন্দর ও নিরপেক্ষ করতে পেরেছি।

রোববার (২ জানুয়ারি) দুপুরে নাসিক নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীদের সঙ্গে নির্বাচন কমিশনারের আচরণ বিধিমালা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন এই সিটি কর্পোরেশনে ভোটার সংখ্যা ৫ লক্ষ ১৭ হাজার ৩৫১টি। আমি মনে করি এই সিটি কর্পোরেশনে কমপক্ষে ২০ লক্ষ মানুষ বসবাস করে। আপনারা যারা নির্বাচনে অংশ গ্রহন করতে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে সাধারন প্রার্থী আছেন ১৪৮ জন, সংরক্ষিত ৩৪ জন ও মেয়র প্রার্থী ৭জন। মোট ১৮৯ জন

তিনি বলেন, আমি মনে করি এই ২০ লক্ষ লোক ১৬ তারিখ উপলক্ষে তাদের শান্তি, শৃঙ্খলা তাদের আনন্দ উৎসব সব কিছু নির্ভর করে আপনাদের এই ১৮৯ জনের উপরে। এই ১৮৯ জন ও আমরা যারা নির্বাচনের কাজে আছি আমরা সকলে এখন নির্বাচন কমিশনের অধীনে। আমরা ইতিবাচক নারায়ণগঞ্জ চাই। আমরা কোন হানাহানি চাইনা। আমরা অতীতের মত নির্বাচন নিয়ে কোন আশঙ্কার কথা শুনতে চাই না। আমাদের পক্ষ থেকে শতভাগ নিরপেক্ষতা থাকবে।

পুলিশ সুপার বলেন, আমি আজ পর্যন্ত একটিও অভিযোগ পাইনি যে আপনাদের কেউ ভোট চাইতে বাধা দিচ্ছে। আমি আশাকরি আগামী চৌদ্দ দিনও কোন অভিযোগ আসবে না। আপনারা ভোট চাইবেন। যার যেখানে ইচ্ছা ভোট দিবেন। কাউকে ভোটে বাধাগ্রস্ত করবেন না। যদি বাধাগ্রস্থ করেন তাহলে আমদের পক্ষ হতে যা যা করণীয় আমরা তাই করে দেখাবো। আমরা শতভাগ সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য নির্বাচন চাই। আমরা উপরে নিচে কাউকে চিনতে চাই না।

তিনি বলেন, ১৮৯ জন প্রার্থীর জন্য আমি ২০ লক্ষ লোকের মনে অশান্তি আনতে দিবো না। যে কোন মুল্যে এই অশান্তি দুর করবো। আপনারা নিজেকে যে যতই পাওয়ারফুল মনে করেন, জনগনের চেয়ে কেউ পাওয়ারফুল না। জনগনের চেয়ে কেউ শক্তিশালী না।

তিনি আরও বলেন, আপনারা সারাদিন একাধিক মাইক বাজাবেন, সারাদিন আপনারা ক্যাম্পপিং করবেন, জনগনকে অশান্তি দিবেন, ভোটার তো মাত্র ৫ লক্ষ। আপনার ২০ লক্ষ লোককে ডিস্টার্ব করে লাভটা কি? আপনাদের নির্বাচন কমিশন যে নিয়ম নীতি দিয়েছে আপনি কয়টা মাইক ব্যবহার করতে পারবেন, কয়টা থেকে কয়টা পর্যন্ত মাইক ব্যবহার করতে পারবেন, কয়টি ভোট ক্যাম্প করতে পারবেন, সেই কয়টাই করবেন। তার বাহিরে করলে আমরা আজ থেকে কঠোর থেকে কঠোরতম হবো। বিন্দু মাত্র ছাড় কাউকে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, আপনাদের রাজনীতি আপনারা করবেন। আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারি। আমরা এখন সকলে নির্বাচন কমিশনের হয়ে কাজ করি। নির্বাচন কমিশন আমাদের যে দিক নির্দেশনা দিয়েছে তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো। একটুও পিছুপা হবো না। আপনাদের কাছে অনুরোধ আপনারা অতিতের মত বা আপনাদের অন্যকোন চিন্তা থাকলে আপনারা ভুলে যান। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০২২ সালে একটি অবাধ নিরপেক্ষ ও একটি মডেল নির্বাচন। আমরা তা নারায়ণগঞ্জ থেকে উপহার দিতে চাই।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো: রফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, নাসিকের নির্বাচন পরিচালনার রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মতিয়ুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার প্রমুখ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com