শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৫ অপরাহ্ন

নারায়ণগঞ্জে ১৬ ইউপিতে ৮৪৪ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা

  • আপডেট সময় সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৩.৪২ এএম
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে

আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের তিন উপজেলার ১৬ ইউপিতে চেয়ারম্যান ও মেম্বার পদে ৮৪৪ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য রোববার (১৭ অক্টোবর) ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। ৮৪৪ প্রার্থীর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৬৪ জন। সাধারণ সদস্য (মেম্বার) ও সংরক্ষিত নারী সদস্যের ১৯২ পদের বিপরীতে ৭৮০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

তবে গোলাকান্দাইল ও ভুলতা ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রোববার রাতে জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

তবে চুড়ান্ত তালিকায় কারা শেষ পর্যন্ত ভোট যুদ্ধে অংশ নিবেন তা জানা যাবে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ অক্টোবর।
জেলা নির্বাচন অফিসারের সূত্রমতে, কাশীপুর ইউপি চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন-বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম সাইফউল্লাহ বাদল, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী মুহাম্মাদ ওমর ফারুক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রাশেদুল ইসলাম।

এছাড়া সাধারণ সদস্যের ৯টি পদের বিপরীতে ৩৫ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্যের ৩টি পদের বিপরীতে ১০ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বক্তাবলী ইউপি চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম শওকত আলী, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী আবুল হোসেন ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৪২ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এনায়েতনগর ইউপি চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আসাদুজ্জামান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউসুফ আলী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৪০ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

কুতুবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মনিরুল আলম সেন্টু, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) মনোনীত প্রার্থী এস এম কাদির, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী, জাকের পার্টির মনোনীত প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৫১ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

আলীরটেক ইউপি চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জাকির হোসেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী সায়েম আহাম্মেদ, ইসলামী আন্দোলনের মনোনীত প্রার্থী ও জাকের পার্টির মনোনীত প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

গোগনগর ইউপি চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন: আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জসিম উদ্দিন, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী আবুল কাশেম ও তিনজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩৬ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বন্দর ইউপি চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী এহসান উদ্দিন আহমেদ, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোক্তার হোসেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩১ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মদনপুর ইউপি চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী গাজী এম এ সালাম, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী, দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩৯ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ধামগড় ইউপি চেয়ারম্যান পদে আটজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাসুম আহম্মেদ, বাংলাদেশ খেলাফত ইসলামের মনোনীত প্রার্থী, ছয়জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৪৮ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মাকসুদ হোসেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মজিবুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ২৭ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

কলাগাছিয়া ইউপি চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন: বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন প্রধান, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজিম উদ্দিন প্রধান, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী, জাকের পার্টির প্রার্থী ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩৯ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

কায়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান পদে দশজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জাহেদ আলী, জাতীয় পার্টির প্রার্থী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমানসহ আটজন। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৫৩ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ২১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মুড়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান পদে দুইজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তোফায়েল আহমেদ আলমাছ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী একজন। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৪১ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

গোলাকান্দাইল ইউপি চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরুল হাসান তুহিন। তবে সাধারণ সদস্য পদে ৩৬টি ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। ভুলতা ইউপিতেও চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ মনোনীত আরিফুল হক ভূঁইয়া মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তিনি বর্তমান পরিষদেরও চেয়ারম্যান। ইউপির সাধারণ সদস্য পদে ৩৩টি ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৭টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে।

ভোলাব ইউপি চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাড. তায়েবুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী, জাকের পার্টির প্রার্থী, দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১০ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

তিন উপজেলার ১৬ ইউপিতে নির্বাচন পরিচালনার জন্য ৭ রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে। কুতুবপুর, গোগনগর ও এনায়েতনগর ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আফরোজা খাতুন। আলীরটেক ও বক্তবলী ইউপি নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছেন সদর উপজেলা প্রাণিসম্পাদক কর্মকর্তা আতাউর রহমান। কাশীপুর ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা সদর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রদীপ চন্দ্র রায়।

মদনপুর, বন্দর ও কলাগাছিয়া ইউপিতে বন্দর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল কাদির রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। মুছাপুর ও ধামগড় ইউপিতে বন্দর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আরিফুর রহমান রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

মুড়াপাড়া, কায়েতপাড়া, ভুলতা ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা হলেন রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান। ভোলাব ও গোলাকান্দাইল ইউপিতে আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সুলতানা এলিন রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

উল্লেখ্য, গত ২৯ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশনের বৈঠক শেষে সারাদেশের ৮৪৮টি ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, দ্বিতীয় ধাপে নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার ৬টি, বন্দর উপজেলার ৫টি ও রূপগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ধার্য করা হয় ১৭ অক্টোবর। এরপর মনোনয়নপত্র বাছাই ২০ অক্টোবর, বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর এবং ভোট গ্রহণ হবে ১১ নভেম্বর। নির্বাচনে রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ও মুড়াপাড়া ইউপিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com