মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩৬ পূর্বাহ্ন

গুমের শিকার ব্যক্তিদের স্মরণে নারায়ণগঞ্জে মানববন্ধন

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১, ৮.১৪ এএম
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

রুদ্রবার্তা২৪.নেট: ‘গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাÐসহ সকল রাষ্ট্রীয় নিপীড়ন বন্ধ কর’ এই ¯েøাগানকে সামনে রেখে গুম হওয়া ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক গুম দিবসে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৩০ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মায়ের ডাক ও হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস নেটওয়ার্ক নারায়ণগঞ্জ ইউনিটির উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালিত হয়।
মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের নারায়ণগঞ্জ ইউনিটির সমন্বয়ক সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন রবিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কমিউিনিস্ট পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বাসদের জেলা সমন্বয়কারী নিখিল দাস। গুমের শিকার ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক দিবসে মায়ের ডাক ও হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস্ নেটওয়ার্ক এর লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মানবাধিকারকর্মী সুমনা। উপস্থিত ছিলেন মানবাধিকার কর্মী শিক্ষাবিদ এম কবীর উদ্দিন চৌধুরী, এনামুল হক প্রিন্স, সিফায়েত উল্লাহ মাসফি, এস এম বিজয় মামুনুল ইসলাম, পান্না আক্তার প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, গুম একটি মানবতাবিরোধী অপরাধ, যা মৌলিক মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন, এটি আন্তর্জাতিক অপরাধ হিসেবেও স্বীকৃত। গুম রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের একটি বড় হাতিয়ার। শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা এবং জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষার অজুহাতে গুমজনিত অপরাধ মূলতঃ তাঁদের বিরুদ্ধেই প্রয়োগ করা হয় যাদেরকে সরকার শত্রæ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। বাংলাদেশ সরকার এখনও গুম সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সনদ বা চুক্তি অনুস্বাক্ষর করেনি এবং সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিনিয়ত গুমের বিষয়টি অস্বীকার করা হচ্ছে। ৩০ অগাস্ট এমন এক সময় পালিত হচ্ছে যখন বাংলাদেশে মানবাধিকার লংঘন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। দেশে অকার্যকর বিচার ব্যবস্থার ফলে রাষ্ট্র কর্তৃক দায়মুক্তির সুযোগে গুমের পাশাপাশি চলছে ব্যাপকভাবে বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ড ও হেফাজতে নির্যাতন করে হত্যা। গুম হওয়া ব্যক্তিরাও নির্যাতন ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ডেরও শিকার হচ্ছেন। এছাড়া গুম হয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের স্ত্রী-সন্তানরাও আর্থিক ও সামাজিকভাবে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়ে চরম কষ্টে রয়েছেন।
বক্তারা আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর ইউনিয়নের কুতুবপুরের ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেন গুমের শিকার হয়েছে। অদ্যবদি তার কোন হদিস নেই। ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী ও সন্তানরা এখনো তার অপেক্ষায় প্রহর গুনছে। তারা ভয়ে রাস্তায়ও নামতে পারছে না। নানাভাবে তাদের হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে। এছাড়া চলতি বছরের ২ জুন বেলা পৌনে ১১টার দিকে আড়াইহাজার উপজেলার বান্টি বাজার থেকে কাপড় ব্যবসায়ী নোমান, মসজিদের ইমাম শহিদুল ইসলাম ও মাদ্রাসা ছাত্র নাছিমকে আইনশৃংখলাবাহিনীর পরিচয়ে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাদেরও কোন খোঁজ পাচ্ছেন না পরিবারের সদস্যরা। আমরা রাষ্ট্রের কাছে দাবি জানাচ্ছি গুম হওয়া ব্যক্তিদের তাদের স্বজনদের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হোক।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2021 rudrabarta24.net
Theme Developed BY ThemesBazar.Com